বাংলা দেশের মৎস্য-শিকারী মাকড়সা

gcb_motsyo-shikari_makorsha

ছবির উৎস

বাংলা দেশের মৎস্য-শিকারী মাকড়সা

১৯৩১ সালের মার্চ মাসের প্রথম ভাগে কলকাতার উপকণ্ঠে একটি বদ্ধ জলাশয়ে ধুসর রঙের একটি মাকড়সার প্রতি দৃষ্টি আকৃষ্ট হয় । জলাশয়টি নানা রকম জলজ উদ্ভিদ ও একপ্রকার বড় বড় শালুক পাতায় পরিপূর্ণ ছিল, তারই একটি পাতার উপর মাকড়সাটা ভিন্ন জাতীয় একটা মাকড়সাকে তীক্ষ্ণ দাঁত ফুটিয়ে অসাড় করে আস্তে আস্তে তার রস চুষে খাচ্ছিল । এই অবস্থায় মাকড়সাটাকে ধরবার উপক্রম করতেই সেটা ছুটে পালিয়ে গেল । তার উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ রেখে তাকে অনুসরণ করতে লাগলাম । অনেকক্ষণ ছুটাছুটির পর ক্লান্ত হয়ে মাকড়সাটা পা গুটিয়ে মৃত্যুর ভাণ করে জলের উপর চিৎ হয়ে ভাসতে লাগলো । তখন সেটাকে ধরবার জন্য যেই হাত বাড়িয়েছি, অমনি আমার চোখের সামনে হঠাৎ কোথায় যেন সেটা অদৃশ্য হয়ে গেল । এই হঠাৎ অদৃশ্য হবার কারণ অনুসন্ধান করে জানতে পেরেছি যে, এই উভচর মাকড়সা সুদক্ষ ডুবুরী ; দশ-পনেরো মিনিট পর্যন্ত অবলীলাক্রমে ডুবে থাকতে পারে ।

  দিনের বেলায় অধিকাংশ সময় এরা জলের উপর কাটায় । অনেক সময় জলজ উদ্ভিদের পাতার উপর বিশ্রাম করে, আবার কখনও কখনও জলের উপর ছুটাছুটি করে বেড়ায় । দিবাবসানে সাধারণত এরা জলাশয়ের পাড়ে ঘাসপাতার মধ্যে আশ্রয় গ্রহণ করে । কখনও কখনও আবার পুকুর ধারে ইতস্তত বিক্ষিপ্ত ইঁট, কাঠ বা খোলামকুচির তলায় অথবা ছোট ছোট গর্তে লুকিয়ে থাকে । দিনের আলো এরা খুবই ভালবাসে, কিন্তু দুপুরের প্রখর রোদের সময় ঝোপ-ঝাড়ের অন্তরালে বা ছায়ার নীচে অবস্থান করে । পুকুরের পরিষ্কার জলের উপর দিয়ে সময় সময় দ্রুতগতিতে লাফিয়ে লাফিয়ে বহুদূর অতিক্রম করে যেতে পারে । চলবার সময় জলের উপর থেমে থাকলে শরীরের ভারে পায়ের নীচে জল একটু টোল খেয়ে যায় মাত্র, জলের উপরের পাতলা পর্দা ছিন্ন করে পা জলের ভিতর ডুবে যায় না । পূর্বেই বলা হয়েছে যে, এদের জলের নীচে ডুবে থাকবার অদ্ভুত ক্ষমতা আছে । কোনো প্রকার ভয়ের কারণ উপস্থিত হলে অথবা শত্রুর নিকট থেকে আত্মরক্ষার নিমিত্ত এরা জলের নীচে ডুব দিয়ে ঘাসপাতা আঁকড়ে ধরে থাকে । শরীরের চতুর্দিকের বাতাসের আস্তরণ ভেদ করে জল এদের গায়ে লাগতে পারে না এবং এইজন্যে জলের নীচে রুপালী রঙের মতো ঝকমকে দেখায় । ধাত্রী মাকড়সাও ভয় পেলে তার অথবা পিঠের উপর অবস্থিত বাচ্চা-গুলিকে নিয়ে জলের তলায় ডুব দিয়ে জলজ লতাপাতার গা বেয়ে এক স্থান থেকে অন্য নিরাপদ স্থানে গিয়ে অনেক সময় পর্যন্ত আত্মগোপন করে থাকে ।

 এরা সাধারণত ছোট ছোট পতঙ্গ এবং একপ্রকার জল-মক্ষিকা শিকার করে বেড়ায় । এই জল-মক্ষিকাগুলিকে অনেক সময় দলবদ্ধভাবে জলের উপর ভেসে বেড়াতে দেখা যায় । এই মাকড়সারা প্রায়ই দুর্বল স্বজাতীয় মাকড়সাদের খেয়ে ফেলে ! স্ত্রী-মাকড়সারাই এই বিষয়ে বিশেষ অগ্রণী, এমন কি, সুযোগ পেলেই তারা পুরুষ মাকড়সাকে ধরে উদরস্থ করে ।  

 এই মাকড়সারা সুদক্ষ শিকারী, এদের কৌশলও অদ্ভুত । এরা কিরূপ ধৈর্যের সঙ্গে শিকারের উপর লাফিয়ে পড়বার সুযোগের অপেক্ষায় বসে থাকে এবং কিরূপ সন্তর্পণে শিকারকে অনুসরণ করে, তা বিশেষ প্রণিধানযোগ্য । আরও বিস্ময়ের বিষয় এই যে, এই ক্ষুদ্র প্রাণী কিরূপ অব্যর্থ কৌশলে নিজের শরীরের অনুপাতে বড় শিকারকে দাঁত ফুটিয়ে অনায়াসে আয়ত্ত করে ফেলে ।

দমদমের নিকটবর্তী একটি জলাশয়ে এই জাতীয় অনেকে ডুবুরী মাকড়সা দেখে তাদের গতিবিধি লক্ষ করছিলাম । দেখলাম, ছোট ছোট অনেক তেচোখো মাছও পুকুরের আশেপাশে সাঁতার কেটে বেড়াচ্ছে । একটু ভয়ের কারণে মাছগুলি ভাসমান শালুক পাতার নীচে গিয়ে লুকিয়ে পড়ছিল এবং একটু পরেই আবার বেরিয়ে আসছিল । এক জায়গায় দেখলাম ছোট্ট একটা শালুক পাতার চারিদিকে কয়েকটি ছোট-ছোট মাছ কি যেন খুঁটে খুঁটে খাচ্ছে । আর পাতাটার উপর প্রায় মধ্যস্থলে একটা ধাড়ী মাকড়সা অনেকক্ষণ ধরে চুপটি করে বসে তাদের লক্ষ করছে ।  হঠাৎ কেউ দেখলে মাকড়সাটার দুরভিসন্ধির কোন লক্ষণই খুঁজে পেত না, নিশ্চয়ই মনে হত মাছগুলির উপর তার মোটেই লক্ষ নেই । কিন্তু প্রকৃত ব্যপারটি সম্পূর্ণ বিপরীত ; কারণ একটু অপেক্ষা করবার পরেই লক্ষ করলাম — মাকড়সাটা মাঝে মাঝে থেমে থেমে খুব সন্তর্পনে পা ফেলে আস্তে আস্তে পাতার ধারের দিকে অগ্রসর হচ্ছে । খুব কাছে এসেই হঠাৎ একটা মাছের উপর লাফিয়ে পড়ে বিষ-দাঁত ফুটিয়ে দিল । ছাড়াবার জন্য মাছটাও আপ্রাণ চেষ্টা করেও কিছুতেই কৃতকার্য হতে পারোল না । অবশেষে মাকড়সা মাছটাকে পাতার উপরে টেনে তুলে কামড়ে ধরেই রইলো । আরও কিছুক্ষণ ছটফট করে মাছটা ক্রমশ নিস্তেজ হয়ে মৃত্যু বরণ করলো । এই মাছটা প্রায় পৌনে এক ইঞ্চি লম্বা ছিল ।

 আরও বিশদভাবে পর্যবেক্ষণ করবার জন্য একটা কাচের চৌবাচ্চার মধ্যে কিছু জলজ উদ্ভিদ ও অল্প জলের মধ্যে কয়েকটি তেচোখো মাছ রেখে কয়েকটা মাকড়সা ধরে এনে ছেড়ে দিলাম । কাচের চৌবাচ্চাটির মসৃণ গা বেয়ে উঠে মাকড়সাগুলির পালিয়ে যাবার উপায় ছিল না । তৃতীয় দিনে দেখলাম একটি মাছ কমে গেছে । মাছের সংখ্যা ক্রমশ কমতে কমতে দশ দিন পরে দেখা গেল একটি মাছও অবশিষ্ট নেই । এতে পরিষ্কারভাবে বোঝা গেল যে মাকড়সারাই মাছগুলিকে নিঃশেষ করেছে ।

 স্বাভাবিক অবস্থায় এদের মাছ ধরা ও খাবার আলোকচিত্র গ্রহণ করা নানা কারণে অত্যন্ত অসুবিধাজনক এবং একরূপ অসম্ভব বলেই মনে হয়েছিল । অবশেষে নিম্নোক্ত উপায়ে এদের এই অবস্থার ছবি তুলতে সফল হয়েছিলাম । জলভর্তি একটা কাচের চৌবাচ্চার মধ্যে কয়েকটা মাকড়সা রেখে দিয়ে বেশ কয়েক দিন অভুক্ত অবস্থায় রেখে দিলাম । কয়েকদিন কিছু খেতে না পেয়ে ওরা অতিমাত্রায় ক্ষুধার্ত হয়ে উঠেছিল । তখন ঐ পাত্রের মধ্যে কয়েকটা তেচোখো মাছ ছেড়ে দেবার পর অল্পক্ষণের মধ্যেই দুটি মাকড়সা দুটি মাছকে বিশদাঁত  দিয়ে বিদ্ধ করে পাতার উপর তুলে ফেললো । পূর্বেই ক্যামেরাটিকে সুবিধামতো ভাবে কাচপাত্রের উপর বসিয়ে দেওয়া হয়েছিল, কাজেই সঙ্গে সঙ্গে ছবি তুলে নিতে আর কোন অসুবিধাই ঘটে নি ।

 মাছটাকে পাতার উপর টেনে তোলবার পর জোরে শব্দ করায়, মাকড়সাটা ভয় পেয়ে মাছটাকে ছেড়ে দিয়ে এক পাশে বসে রইলো ।

বৈশাখ, ১৩৪০
প্রবাসী

উৎসাহী পাঠকদের জন্য – 

১। American Museum of National History দ্বারা প্রকাশিত National History-te গোপাল চন্দ্র ভট্টাচার্যের লেখা Diving Spiders

বাংলা প্রবন্ধ সংগ্রহ

Facebook Comments
(Visited 133 times, 1 visits today)
 

পাঁচমেশালী

লঙ্কাকাণ্ড


বিভাগ: দৈনন্দিন জীবনে রসায়ন (2014-07-19)

"তেজপাতে তেজ কেন? ঝাল কেন লঙ্কায়?" তেজপাতার কথা পরে জানব, আপাতত লঙ্কাকাণ্ড শোনা যাক পদক্ষেপ স্বেচ্ছাসেবীর কাছ থেকে।

আরো দেখো

 
 

তুমি যদি কোনো নির্দিষ্ট বিষয়ের উপর লেখা পেতে চাও অথবা তোমার যদি এমন কোনো প্রশ্ন থাকে যেটা তুমি কোনো বইতে বা ইন্টারনেটে খুঁজে পাওনি, তাহলে এই ফর্মটির মাধ্যমে আমাদের কাছে প্রশ্ন পাঠাও।

নিয়মাবলী

হোমওয়ার্ক জাতীয় প্রশ্ন পাঠাবে না।

ভালো প্রশ্নের উদাহরণ:

  1. নিউটনের মহাকর্ষ সূত্রে আমরা বিন্দুভর কেন ব্যবহার করি?
  2. গাছ মাটি থেকে জল কিভাবে টানে?
  3. ভাইরাস ব্যাকটেরিয়াকে কিভাবে আক্রমণ করে?

আমরা যে ধরনের প্রশ্নের উত্তর দেব না:

  1. ২ আর ২ যোগ করলে কত হয়?
  2. Autotroph কাদের বলে?

আর তুমি যদি বিজ্ঞানে লেখা পাঠাতে চাও, তাহলে এই ফর্মে প্রশ্ন করার কোনো দরকার নেই। এই পাতাতে লেখা পাঠানোর জন্য সমস্ত তথ্য পাবে: http://bigyan.org.in/oldabout/tosubmitarticles/

তোমার সঠিক ই-মেইল পাঠাও । ভুল ই-মেইল দেওয়া হলে, আমরা উত্তর দেব না।


*
 
*
 
*
 
স্কুলে পড়ি কলেজে / বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ি গবেষণার সাথে যুক্ত শিক্ষক চাকুরিজীবী অন্যান্য

*

 
*
তুমি যদি কোনো না জানা প্রশ্নের উত্তর জানতে চাও তাহলে "প্রশ্নোত্তর" এ ক্লিক কর, আর যদি কোনো বিষয়ে লেখা পেতে চাও, তাহলে "লেখার বিষয়"-এ ক্লিক কর |
প্রশ্নোত্তর লেখার বিষয়
 
*
নীচের বাক্সতে বাংলায় অথবা ইংরেজিতে তোমার প্রশ্ন লেখ।
 
*
পদার্থবিদ্যা (Physics) জীববিদ্যা (Biology) রসায়ন (Chemistry) গণিত (Mathematics) রাশিবিদ্যা (Statistics) Other
 
*
 
*
 
*
 
স্কুলে পড়ি কলেজে / বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ি গবেষণার সাথে যুক্ত শিক্ষক চাকুরিজীবী অন্যান্য

*

 
 
 
*
 
*
 
*
 
স্কুলে পড়ি কলেজে / বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ি গবেষণার সাথে যুক্ত শিক্ষক চাকুরিজীবী অন্যান্য

*

 
 
 

বিজ্ঞান আপডেট

তোমার ইনবক্সে বিজ্ঞানের সাম্প্রতিক খবরাখবর

 

তুমি যদি কোনো নির্দিষ্ট বিষয়ের উপর লেখা পেতে চাও অথবা তোমার যদি এমন কোনো প্রশ্ন থাকে যেটা তুমি কোনো বইতে বা ইন্টারনেটে খুঁজে পাওনি, তাহলে এই ফর্মটির মাধ্যমে আমাদের কাছে প্রশ্ন পাঠাও।

নিয়মাবলী

হোমওয়ার্ক জাতীয় প্রশ্ন পাঠাবে না।

ভালো প্রশ্নের উদাহরণ:

  1. নিউটনের মহাকর্ষ সূত্রে আমরা বিন্দুভর কেন ব্যবহার করি?
  2. গাছ মাটি থেকে জল কিভাবে টানে?
  3. ভাইরাস ব্যাকটেরিয়াকে কিভাবে আক্রমণ করে?

আমরা যে ধরনের প্রশ্নের উত্তর দেব না:

  1. ২ আর ২ যোগ করলে কত হয়?
  2. Autotroph কাদের বলে?

আর তুমি যদি বিজ্ঞানে লেখা পাঠাতে চাও, তাহলে এই ফর্মে প্রশ্ন করার কোনো দরকার নেই। এই পাতাতে লেখা পাঠানোর জন্য সমস্ত তথ্য পাবে: http://bigyan.org.in/oldabout/tosubmitarticles/

তোমার সঠিক ই-মেইল পাঠাও । ভুল ই-মেইল দেওয়া হলে, আমরা উত্তর দেব না।


*
 
*
 
*
 
স্কুলে পড়ি কলেজে / বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ি গবেষণার সাথে যুক্ত শিক্ষক চাকুরিজীবী অন্যান্য

*

 
*
তুমি যদি কোনো না জানা প্রশ্নের উত্তর জানতে চাও তাহলে "প্রশ্নোত্তর" এ ক্লিক কর, আর যদি কোনো বিষয়ে লেখা পেতে চাও, তাহলে "লেখার বিষয়"-এ ক্লিক কর |
প্রশ্নোত্তর লেখার বিষয়
 
*
নীচের বাক্সতে বাংলায় অথবা ইংরেজিতে তোমার প্রশ্ন লেখ।
 
*
পদার্থবিদ্যা (Physics) জীববিদ্যা (Biology) রসায়ন (Chemistry) গণিত (Mathematics) রাশিবিদ্যা (Statistics) Other
 
*
 
*
 
*
 
স্কুলে পড়ি কলেজে / বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ি গবেষণার সাথে যুক্ত শিক্ষক চাকুরিজীবী অন্যান্য

*

 
 
 
*
 
*
 
*
 
স্কুলে পড়ি কলেজে / বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ি গবেষণার সাথে যুক্ত শিক্ষক চাকুরিজীবী অন্যান্য

*

 
 
 

বিজ্ঞান আপডেট

তোমার ইনবক্সে বিজ্ঞানের সাম্প্রতিক খবরাখবর

 
top