Archive for June, 2016

image_print

প্রাণের উৎস

প্রাণের উৎস

আমাদের চারপাশে প্রাণের এত কোলাহল! কোথা থেকে এলো এত প্রাণ? এই কঠিন প্রশ্নের জবাব সভ্যতার আদিকাল থেকে মানুষ খুঁজে চলেছে। বিজ্ঞানের এই জয়জয়কারের যুগে আমরা কতটুকু জানতে পেরেছি, তার বিশ্লেষণ নিয়ে হাজির অর্ণব রুদ্র, “প্রাণের উৎস” ধারাবাহিকে। আজ প্রথম পর্বে রইলো প্রশ্ন — পৃথিবীর জীবন দাতা জলের আবির্ভাব কোথা থেকে এবং কবে হলো?

পড়তে থাকুন... »

জীবাণুদের যত কথা – ৮

জীবাণুদের যত কথা – ৮

ব্যাকটেরিয়াদের আকার ছোট হলে কি হবে, ওরাই আমাদের নাস্তানাবুদ করে ছেড়েছে। আগের পর্বে গ্রাম-পজিটিভ ব্যাকটেরিয়াদের মারার ছক কষেছি। কিন্তু সেই ছকে গ্রাম-নেগেটিভদের মারা যাবে না। তাদের জন্য অন্য প্ল্যান। সেই প্ল্যান নিয়েই আজ আমাদের ওয়ার-রুমে নিয়ে যাবে ব্যাকটেরিয়া বিশারদ দেবনাথ ঘোষাল। ওর পঞ্চ প্ল্যানেই হবে গ্রাম-নেগেটিভ ব্যাকটেরিয়াদের পঞ্চত্বপ্রাপ্তি।

পড়তে থাকুন... »

সূক্ষ্ম হতে সূক্ষ্মতর

সূক্ষ্ম হতে সূক্ষ্মতর

যে কোনো পদার্থের ভেতরের এবং উপরিতলের পরমাণুর রকমসকম একেবারেই আলাদা হয়। এই পার্থক্যকে কাজে লাগিয়ে মানুষের জীবনযাত্রায় বিপ্লব ঘটিয়েছে ন্যানোটেকনোলজি। কিন্তু এই পরমাণুকে না যায় সরাসরি দেখা, না যায় ইচ্ছেমতন ছোঁয়া–তাহলে কি ভাবে ঘটল এই বিপ্লব? দেবলীনা দাশের কলমে পড়ুন কোয়ান্টাম মেকানিকাল টানেলিং এবং স্ক্যানিং টানেলিং মাইক্রোস্কোপ-এর গল্প।

পড়তে থাকুন... »

মহাকর্ষীয় তরঙ্গের দেখা মিললো (তৃতীয় পর্ব) – খড়ের গাদায় সূঁচ খোঁজা

মহাকর্ষীয় তরঙ্গের দেখা মিললো (তৃতীয় পর্ব) – খড়ের গাদায় সূঁচ খোঁজা

লাইগোর বিজ্ঞানীদের তৈরি করা বিশাল ইন্টারফেরোমিটার ক্ষণিকের জন্য কেঁপে উঠল ২০১৫ সালের ১৪ই সেপ্টেম্বর ভোর রাতে। তাহলে এতদিনের কষ্টের ফল কি পাওয়া গেল অবশেষে? ধরা পড়ল মহাকর্ষীয় তরঙ্গ? এতটা সোজা নয় – যন্ত্র তো নড়তে পারে আরও হাজারটা কারণে! এই ধারাবাহিকের শেষ পর্বে সেই কাহিনী।

পড়তে থাকুন... »

image_print