জ্যামিতির গোড়ার কথা : ইউক্লিড থেকে রীমান – ৬

জ্যামিতির গোড়ার কথা : ইউক্লিড থেকে রীমান – ৬

ইউক্লিডীয় স্থানে ইনার প্রোডাক্ট আমাদের জীবনকে সহজ করে তোলে, এক বিন্দু থেকে আরেক বিন্দুর মধ্যে দূরত্বের ধারণা দেয়। কিন্তু ইউক্লিডীয় স্থান না হলে আমাদের মুশকিল আসান করবে কে ? আমাদের অচেনা এই দেশে সমান্তরাল বা প্যারালাল কথাটার মানেই বা কি? স্বর্ণেন্দু শীলের ধারাবাহিক রচনায় এইসব প্রশ্নের সমাধান হবে “সমান্তরাল সংবহন” এবং “রীমানীয় মাপক”-এর মাধ্যমে।

পড়তে থাকুন... »

প্রাচীন ভারতীয় বিজ্ঞানের উত্থান ও পতন (পর্ব ৪): কিছু বিলুপ্তপ্রায় উপশাখা

প্রাচীন ভারতীয় বিজ্ঞানের উত্থান ও পতন (পর্ব ৪): কিছু বিলুপ্তপ্রায় উপশাখা

প্রাচীন ভারতীয় বিজ্ঞানচর্চার ধারাটি কোথায় গিয়ে শেষ হয়? ড: ডি. পি. রায় রচিত ধারাবাহিকের শেষ পর্বে আমরা দেখবো এই অন্তিম মুহূর্তগুলোকে। সমাজের মূলস্রোত থেকে হারিয়ে গেলেও ভারতীয় বিজ্ঞানচর্চার কিছু ভগ্নাবশেষ অদ্ভুতভাবে রয়ে গেছিলো। যখন ব্রিটিশরা এদেশে পা দিলো, তারা দেখলো কিছু নিচুতলার জাতির মধ্যে অস্ত্রোপচার বা ধাতুশিল্পের আশ্চর্য কারিগরি ক্ষমতা। তথাকথিতভাবে অশিক্ষিত হলেও এইসব জাতিরাই হয়তো ভারতের এককালীন বৈজ্ঞানিক অগ্রগতির পরিচয় বহন করে। কিন্তু সত্যিই কি একে টিকে যাওয়া বলে? লেখার শেষে এম. এস. বালিয়াথান এবং পি. সি. রায় এর উত্তর দিচ্ছেন।

পড়তে থাকুন... »

জ্যামিতির গোড়ার কথা : ইউক্লিড থেকে রীমান – ৫

জ্যামিতির গোড়ার কথা : ইউক্লিড থেকে রীমান – ৫

ইউক্লিডীয় স্থানে একটাই স্থানাঙ্কতন্ত্র বা কো-অর্ডিনেট সিস্টেম ব্যবহার করে যে কোন বিন্দুর অবস্থান পাওয়া যেতে পারে। কিন্তু বক্রতলের ক্ষেত্রে? সেখানে একাধিক আঞ্চলিক স্থানাঙ্কতন্ত্র ব্যবহার করে নকশিকাঁথার দেশে গিয়ে সেই সমস্যা সমাধান করতে হয়। বক্রতলের প্রতিটি বিন্দুতে একটি “লিনিয়ার” স্থান কল্পনা করার রহস্য আমরা জানবো স্বর্ণেন্দু শীলের ধারাবাহিক রচনায়।

পড়তে থাকুন... »

প্রাচীন ভারতীয় বিজ্ঞানের উত্থান ও পতন (পর্ব ৩): আয়ুর্বেদ

প্রাচীন ভারতীয় বিজ্ঞানের উত্থান ও পতন (পর্ব ৩): আয়ুর্বেদ

প্রাচীন ভারতীয় বিজ্ঞান যদি এতটাই এগিয়ে ছিল, আজকে আমরা এখানে এসে পৌঁছলাম কিভাবে? সেই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে বেড়িয়েছিলেন অধ্যাপক ডি. পি. রায়। চারটি পর্বে প্রকাশিত এই লেখাটির আজ তৃতীয় পর্ব। এই পর্বটি আয়ুর্বেদ নিয়ে। চিকিৎসাশাস্ত্র ও অস্ত্রোপচার শিক্ষা ভারত থেকে একসময় চারিদিকে ছড়িয়ে পড়েছিলো। অথচ মূল কেন্দ্রস্থল ভারত থেকেই সেসব শিক্ষা বিলুপ্ত হয়ে গেলো কিকরে? শুনুন অধ্যাপক রায়ের কাছে।

পড়তে থাকুন... »

অঙ্ক নয় কঠিন

অঙ্ক নয় কঠিন

সংখ্যা নিয়ে খেলা করতে করতে এক মারাঠি ইস্কুল শিক্ষক বিশেষ স্থান অধিকার করে নিলেন গণিতের গবেষণা জগতে। তাঁর নামে এবং তাঁর দেওয়া নামে অমর হয়ে রইলো সংখ্যার জগতের কিছু বাসিন্দা। কিন্তু আমরা অনেকেই হয়তো তাঁর নামই শুনি নি। সেই স্বল্প-পরিচিত সংখ্যা-বিশারদ ডি. আর. কাপ্রেকার এবং তাঁর আবিষ্কৃত কিছু অদ্ভুত সংখ্যার কথা জানাচ্ছে শ্রীনন্দা ঘোষ এবং অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায়।

পড়তে থাকুন... »

প্রাচীন ভারতীয় বিজ্ঞানের উত্থান ও পতন (পর্ব ২): জ্যোতির্বিদ্যা

প্রাচীন ভারতীয় বিজ্ঞানের উত্থান ও পতন (পর্ব ২): জ্যোতির্বিদ্যা

প্রাচীন ভারতীয় বিজ্ঞান যদি এতটাই এগিয়ে ছিল, আজকে আমরা এখানে এসে পৌঁছলাম কিভাবে? সেই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে বেড়িয়েছিলেন অধ্যাপক ডি. পি. রায়। চারটি পর্বে প্রকাশিত এই লেখাটির আজ দ্বিতীয় পর্ব। এই পর্বটি জ্যোতির্বিদ্যা নিয়ে। আর্যভট্ট, বরাহমিহিরের মতো উজ্জ্বল নক্ষত্র ভারতীয় জ্যোতির্বিদ্যাকে যেখানে পৌঁছে দিয়েছিলেন, সেখান থেকে পদস্খলন হলো কিকরে? কোথায় পিছিয়ে পড়লো ভারতীয় জ্যোতির্বিদ্যা? শুনুন অধ্যাপক রায়ের কাছে।

পড়তে থাকুন... »

নুড়ি সরানোর খেলা ও গোল্ডেন রেসিও

নুড়ি সরানোর খেলা ও গোল্ডেন রেসিও

গণিতে ‘গোল্ডেন রেসিও’ এক অদ্ভূত সংখ্যা। নানারকম ভিন্ন প্রশ্নের সমাধান করতে গিয়ে এই সংখ্যাটি বেরিয়ে আসে। সেরকমই একটি সমস্যা এক নুড়ি সরানোর খেলা। এই খেলা থেকে সংখ্যাটি কিভাবে বের হয়, সেটা ধাপে ধাপে প্রমাণ করে দেখাচ্ছে নীলাব্জ চ্যাটার্জী।

পড়তে থাকুন... »

প্রাচীন ভারতীয় বিজ্ঞানের উত্থান ও পতন (পর্ব ১): রসায়ন ও ধাতুবিদ্যা

প্রাচীন ভারতীয় বিজ্ঞানের উত্থান ও পতন (পর্ব ১): রসায়ন ও ধাতুবিদ্যা

আমরা জানি, প্রাচীন ভারত বিজ্ঞানে অনেকটাই এগিয়ে ছিল। কিন্তু মধ্যযুগ পার হতেই সেসব হারিয়ে গেল কি করে? সেটা কি শুধুই বহিরাগতদের আক্রমণ নাকি অন্য কোনো কারণও ছিল? অধ্যাপক ডি পি রায় সেই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গিয়ে লক্ষ্য করলেন কখনো হয়তো বহিরাগতদের উপর দোষটা চাপানো যায়। কিন্তু তার থেকেও বড় একটি সমস্যা ভারতীয় বিজ্ঞানচর্চার গভীরে প্রবেশ করে গেছিলো: পরীক্ষানির্ভর গবেষণা থেকে সরে আসা। চারটি খণ্ডে সেটা শুনুন অধ্যাপক রায়-এর কাছ থেকে। আজকের আলোচনা রসায়ন ও ধাতুবিদ্যা নিয়ে।

পড়তে থাকুন... »